Little Red Hen Story in Bengali ছোট্ট লাল মুরগি গল্প বাংলা

Admin
0
Little Red Hen Story in Bengali Language: In this article, we are providing ছোট্ট লাল মুরগি গল্প বাংলা for students. Little Red Hen Story Bangla.

Little Red Hen Story in Bengali ছোট্ট লাল মুরগি গল্প বাংলা

কোন এক সময় এখানে একটা ছােট্ট সুন্দর বাড়ী ছিল, একটা ছােট্ট লাল মুরগী তার বাচ্চাদের নিয়ে বাস করত। ছোেট্টা লাল মুরগীটি তার বাড়ী এবং পরিবারকে দেখা শােনা করার জন্য কঠোর পরিশ্রম করত। কিন্তু মুরগীটি সর্বদাই খুশীতে থাকার চেষ্টা করত তাই সে তার প্রাত্যহিক কাজ নিয়ে একঘেয়ে হয়ে গেলে আনন্দের গান গাইত।
ছােট্ট লাল মুরগীটির তিনটি বন্ধু ছিল – একটা বিড়াল, একটা কুকুর এবং একটা শুকোর ছানা। তারা সকলেই তার খুব কাছেই থাকত। প্রতিদিন সে তার তিন বন্ধুকে খেলতে দেখত কিন্তু সে খেলার সময় পেত না। সে তার বাচ্চাদেও বাড়ি নিয়ে খুবই ব্যস্ত থাকত।
সে প্রত্যেকদিন খুবই সকালে ঘুম থেকে ওঠে প্রথমেই বাচ্চাদের জন্য জল খাবারের বন্দোবস্ত করে ফেলত। তারপর সে বিছানা পত্র গুছিয়ে বাগানের কাজে লেগে পড়ত। তারপর রান্না করা, জামাকাপড় কাচা এবং ঘর পরিষ্কার সবই একা হাতে করতে হােত। সে সকাল থেকে রাত পর্যন্ত কঠোর পরিশ্রম করত।
কিন্তু তার তিন অলস বন্ধু - বিড়াল, কুকুর এবং শুকোর ছানা কোন কাজই করত না। সকাল বেলা তারা প্রাতঃভ্রমণের জন্য বেরােতাে তারপর নরম ঘাসের উপর শুয়ে বই পড়ে বা খেলে সময় কাটিয়ে দিত।
একদিন সকাল বেলা ছােট্ট লাল মুরগীটি তার বাগানে ঢুকে কঠোর পরিশ্রম করছিল। সে আগাছা উপড়াতে গিয়ে দেখলাে সেখানে ছােট্ট ছােট্ট গমের চারা জন্মেছে।
সে তার তিন বন্ধুকে ডেকে জিজ্ঞাসা করল — ‘গমের চারাগুলি কে লাগিয়েছে?
বিড়াল বলল ‘আমি লাগাই নি। কুকুর বলল আমি লাগাই নি। শুকোর ছানা বলল ‘আমিও লাগাই নি।
তখন লাল মুরগীটি বলে তা হলে হয়তাে আমি নিজেই লাগিয়ে ছিলাম।
ছােট্ট লাল মুরগীটি গমের চারাগুলিকে বড় করতে থাকে। দেখতে দেখতে গাছগুলি গমে ভরে যায়। ছােট্ট মুরগীটি পরিপক্ক গমগুলির দিকে তাকিয়ে বলে ‘গমগুলি পরিচর্যা করতে আমাকে কে সাহায্য করবে?
বিড়ালটি বলে আমি পারব না। কুকুর জবাব দেয় ‘আমি পারব না। শুকোর ছানাও বলে আমার দ্বারাও হবে না।
তখন সে তার লি বন্ধুকে উদ্দেশ্য করে বলে তা হলে আমাকে একাই করতে হবে।
দিন যত যেতে থাকে গমের জন্য মুরগীর পরিশ্রম তত বৃদ্ধি পায়। সে জমিতে জল দেওয়া, আগাছা তােলা এই সমস্তই তাকে একা হাতে করতে হােত। অবশেষে গম পাকতে শুরু করে এবং সেগুলি তােলার যােগ্য হয়ে ওঠে।
ছােট্ট লাল মুরগীটি প্রশ্ন করে ‘গম কাটতে কে সাহায্য করবে। বিড়াল বলে আমি পারব না। কুকুর বলে আমি পারব না। শুকোর ছানা বলে আমি পারব না। তখন ছােট লাল মুরগীটি বলে তাহলে আমাকেই করতে হবে।
সােনালী গম গাছগুলি কাটতে তার সকাল থেকে রাত হয়ে যেত। সমস্ত গম গাছ কাটা শেষ হয়ে গেলে সে গমগুলিকে তার গুদামে মজুত করে।
সে তার গুদামের দিকে তাকিয়ে দেখে যে তার গুদাম সােনালী গমে পূর্ণ হয়ে গেছে তখন সে তার বন্ধুদের জিজ্ঞাসা করে আটা তৈরীর জন্য গমগুলি দমকলে নিয়ে যেতে কে সাহায্য করবে? 
বিড়াল বলল ‘আমি পারব না। কুকুর বলল আমি পারব না। শুকোর ছানা বলল আমি পারব না।
তখন ছােট্ট লাল মুরগীটি তার বন্ধুদের বলে তাহলে আমাকেই করতে হবে।
ছােট্ট মুরগীটি গ্রামে পথ ধরে বহুদূর হাঁটতে থাকে, সঙ্গে সে তার গমগুলিকে বয়ে নিয়ে যায়।
গ্রামে যাওয়ার পর এক দমকলের মালিকের সাথে দেখা হয়। ছােট্ট মুরগীটি তাকে জিজ্ঞাসা করে তুমি এই গমগুলি ভাঙিয়ে আটা করে দেবে?
দমকলের মালিকটি বলে ‘অবশ্যই। এর সাহায্যে তুমি তােমার ছানাদের জন্য প্রচুর রুটি তৈরি করতে পারবে।
দমকলের মালিক গমগুলিকে আটাতে রূপান্তরিত করে দেয় এবং মুরগীটি সেগুলি নিয়ে বাড়ির উদ্দেশ্যে রওনা দেয়। তখন তার কাছে রুটি তৈরি করার জন্য প্রচুর আটা মজুদ ছিল।
ছােট্ট মুরগীটি তার বাড়িতে পৌছানাের পর দেখে তার তিন অলস বন্ধু তার জন্য অপেক্ষা করছে। সে তাদের আটা দেখায় এবং বলে এখন আমি এই আটা দিয়ে রুটি বানাব।'
তারপর সে.জিজ্ঞাসা করে রুটি বানাতে কে আমাকে সাহায্য করবে?’ বিড়াল বলে আমি পারব না।' কুকুর বলে ‘আমি পারব না। শুকোর ছানা বলে আমি পারব না।
ছােট্ট মুরগীটি বলে তাহলে এটাও আমি করতে পারব। এবং সে তার তিন প্রকৃত বন্ধুকে দেখে অবাক হয়ে যায়।
রুটি তৈরি হয়ে যাওয়ার পর ছােট্ট মুরগীটি জিজ্ঞাসা করে এই রুটি খেয়ে কে উপকার করতে পারবে? বিড়াল বলে আমি পারব। কুকুর বলে আমি পারব’ শুকোর ছানাও বলে আমি পারব।
কিন্তু ছােট্ট মুরগীটি সশব্দে তার পা ফেলে এবং রেগে গিয়ে বিড়াল, কুকুর ও শুকোর ছানাকে বলে না। আমিই গমের চারা দেখতে পাই, আমিই গাছগুলি রােপন করি। আমিই সেগুলির পরিচর্চা করি আমিই গম কেটেছি, আমিই গম ভাঙিয়ে আটা বানিয়েছি এবং এখন আমি রুটি বানিয়েছি।
ছােট্ট মুরগীটি আরও বলে এই প্রতিটি কাজ আমি নিজে করেছি। সুতরাং এখন আমি আর আমার বাচ্চারাই রুটি খাব। আর কেউ পাবে না।

Post a Comment

0Comments
Post a Comment (0)

#buttons=(Accept !) #days=(20)

Our website uses cookies to enhance your experience. Learn More
Accept !