Bengali Essay on "Domestic Animals", "গৃহপালিত পশু বাংলা অনুচ্ছেদ রচনা" for Class 5, 6, 7, 8, 9 & 10

Admin
0
Essay on Domestic Animals in Bengali Language: In this article, we are providing গৃহপালিত পশু বাংলা অনুচ্ছেদ রচনা for students. Bengali Essay on Domestic Animals.

Bengali Essay on "Domestic Animals", "গৃহপালিত পশু বাংলা অনুচ্ছেদ রচনা" for Class 5, 6, 7, 8, 9 & 10

প্রত্যেকটি দেশের কাছে গৃহপালিত জন্তু একটা সাধারণ বিষয়। আমাদের দেশেও বিভিন্ন পরিবারের মধ্যে এই শখ দেখা যায়। বিভিন্ন প্রজাতির জন্তুকেই ঘরে পালন পােষণ করা হয়ে থাকে। প্রত্যেকে তাদের নিজের রুচি অনুযায়ী জন্তুদের নির্বাচন করে থাকেন, গৃহপালিত জন্তুরা যে শুধুমাত্র আনন্দই দান করে তা নয় বরং অনেক সময় এদের দ্বারা প্রচুর উপকার পাওয়া যায়।
গৃহপালিত জন্তুদের গুণে শেষ করা যায় না। তােতা পাখি থেকে শুরু করে পায়রা, কাকাতােয়া এবং ময়ূর সবই গৃহপালিত পক্ষী বিশেষ। এই গৃহপালিত জন্তুর সারিতে কুকুর, বিড়াল, ঘােড়া, খচ্চর এবং ঘােটকীও আছে। তারপর গরু, ছাগল, মহিষ, খরগােশ, হরিণ, কাঠবিড়ালী এবং বেজি সবই গৃহপালিত জন্তুর মধ্যে পড়ে। কিন্তু প্রতিটি পরিবার নিজেদের পছন্দ অনুসারেই জন্তু পুষে থাকে।
ভারত এবং ইউরােপের দেশগুলিতে সাধারণত কুকুর পােষার চলন আছে। কুকুরের ব্যাপারে ইউরােপিয়ানরা যথেষ্ট অনুরাগী। অনেক সময় তারা মানুষকেও অত যত্ন করে না যতটা কুকুরকে করে। কুকুর প্রচণ্ড বিশ্বাসী প্রাণী। এই কারণে অনেকেই গৃহপালিত জন্তুর মধ্যে কুকুরকেই সবচেয়ে বেশী গুরুত্ব দিয়ে থাকে। কুকুর রাতে আমাদের সম্পত্তি পাহারা দেয় এবং চোরেদের হাত থেকে তা রক্ষা করে। তারা খুব সুন্দর ভাবে খেলতেও জানে। খেলার ব্যাপারে প্রভুরাই তাদেরকে প্রশিক্ষণ দিয়ে থাকে।
অনেকে আবার বিড়াল ও বেজিও পুষে থাকে। বিড়াল যে শুধুমাত্র ইদুর মারে তাই নয়, অনেক সময় এটি আমাদের বিনােদনের মাধ্যম হয়ে দাঁড়ায়। কিন্তু একই সঙ্গে তারা খাবার দাবারও চুরি করে খায়।
ময়ুর হল ভারতের জাতীয় পাখি, ভারতের বেশ কিছু স্থানে যথেষ্ট পরিমাণে ময়ুর দেখা যায়। বালুকাময় স্থানে তারা প্রচণ্ড খুশীতে থাকতে পারে। ময়ুর খুবই সুন্দর পাখি। রাজস্থানের বেশীর ভাগ পরিবার ময়ূর পুষে থাকে।
গরু এবং মহিষ ভারতের অর্থনীতিকে যথেষ্ট পরিমাণে সাহায্য করে থাকে। এমন কি ধর্মীয় দিক থেকে ভারতবর্ষে গরুকে পূজা করা হয় । হিন্দুদের কাছে গরু গােমাতা বলে পরিচিত। গরু দুধ খুবই পুষ্টিকর। এর বিষ্টা জ্বালানী এবং সার হিসাবে ব্যবহার করা হয়। গাে-চোনা থেকে ঔষধ প্রস্ত হয়। অনেকে এর মাংসও ভক্ষণ করে থাকে, তাদের গাে-ভক্ষক বলা হয়। কিন্তু বেশীর ভাগ মানুষই গরুর মাংস ভক্ষণকে খারাপ চোখে দেখে।
ভারতে ঘােড়াও খুবই পরিচিত একটা জন্তু। তারা খুব দ্রুত দৌড়াতে পারে বলে ঘােরার সময় তারা যানবাহন হিসাবে কাজ করে। প্রাচীন যুগে যখন ট্রেন বা প্লেনের আবিষ্কার হয়নি তখন যুদ্ধের জন্য ঘােড়া ছিল অপরিহার্য অংশ। প্রতিযােগীরা ঘােড়া পালন করে। গ্রামের সম্ভ্রান্ত ব্যক্তিরা এক স্থান থেকে অন্যত্র যাওয়ার জন্য ঘােড়াই ব্যবহার করে থাকে। এছাড়াও, সেখানে খচ্চর এবং গাধাও দেখা যায়। এরা জিনিসপত্র বহন করার কাজ করে। তারা বােঝা বহন করার পশু হিসাবেই পরিচিত।
অনেক মানুষ আবার পাখি, খরগােশ, হরিণ এবং ঘুঘু পুষে থাকেন। এই প্রাণীগুলি সত্যিই আনন্দ দান করে। পাখিদের কূজন প্রভুদের পুলকিত করে। তােতাপাখি খুবই পরিচিত গৃহপালিত প্রাণী। এই পাখিটি মানুষের মতন কথা বলতে জানে। অনেক আবার বানরও পুষে থাকে। তাদের অঙ্গভঙ্গী দেখে মানুষরা গৃহপালিত জন্তুদের কাছ থেকে আমরা অনেক কিছু শিখে থাকি। আমরা তাদের আওয়াজের ধরণ, খাদ্যাভ্যাস এবং পছন্দ ও অপছন্দ সম্পর্কে জানতে পারি। সর্বপরি তারা প্রভুর আনন্দ দান করে এবং তাদের নিয়ে থাকলে মানুষের সময় খুব সুন্দরভাবে অতিবাহিত হয়। অনেক মানুষ শখেও পশু পালন করে থাকে। তাদের দেখাশােনা করা সত্যিই ব্যয় সাপেক্ষ। তারা যদি সঠিক পরিচর্যা না পায় তবে যেকোন রােগে আক্রান্ত হতে পারে এবং মারাও যেতে পারে।

Post a Comment

0Comments
Post a Comment (0)

#buttons=(Accept !) #days=(20)

Our website uses cookies to enhance your experience. Learn More
Accept !