Essay on Police in Bengali Language for class 5, 6, 7, 8, 9 & 10

Admin
0

Essay on Police in Bengali Language for class 5, 6, 7, 8, 9 & 10

Essay on Police in Bengali Language: প্রতিটি দেশের কাছেই আইন একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। আইনের সাহায্যে শান্তি বজায় রাখা সম্ভব হয়। সুতরাং প্রত্যেক সামাজিক মানুষকেই আইনের ব্যাপারটি খেয়াল করা উচিত। কিন্তু আমাদের সামাজের এমন অনেক মানুষ আছেন যাদের স্থানীয় আইন সম্পর্কে কোন মাথা ব্যথা থাকে না।
যে সমস্ত মানুষেরা আইন ভঙ্গ করেন তাদেরকে বন্দী বা নিয়ন্ত্রণ করতে পুলিশের খুবই আগ্রহী। তারা তাদেরকে আইনের পথে চলতে শেখায়। কিন্তু তা সত্ত্বেও যারা তা ভঙ্গ করেন পুলিশেরা তাদেরকে শাস্তি প্রদান করেন। পুলিশদের জন্যই আমাদের জীবন এবং সম্পত্তি দুটিই সুরক্ষিত থাকে। এমনকি একটি জাতির জীবনের জন্য পুলিশেরা খুবই গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি বলে পরিগণিত হয়। তারা সমাজের রক্ষাকর্তার মতন কাজ করে যায়।
পুলিশেরা স্বাস্থবান ব্যক্তি হয়। তাদের পরিধেয় পােশাকের রং হয় খাকি এবং তাদের হাতে লাঠি কোমরে গােলকার বেল্ট থাকে। ভারতবর্ষের প্রত্যেক রাজ্যের পুলিশদের ভিন্ন ভিন্ন রকমের প্রতীক থাকে যার মাধ্যমে তাদেরকে আলাদা করা সম্ভব হয়।
একজন পুলিশ পুলিশস্টেশনে বা চেক পােস্টে বিভিন্ন রকম কাজ করে থাকে। কখনও কখনও শহরের যে অংশে গন্ডগােল বা আগুন লাগার সম্ভাবনা থাকে পুলিশদের সেই সব অংশে প্রেরণ করা হয়। জন বিক্ষোভ বা ধর্মঘটের সময় তারা চূড়ান্ত ভূমিকা পানল করে। যখন জনগণেরা বিক্ষুব্ধ হয়ে পড়েন তখন তারা সেই ভীড় সামলানাের জন্য একটি লাঠি ব্যবহার করে। যদি অবস্থা অবনতির দিকে যায় তবে তারা উচ্চপদাধিকারীদের মতামত নিয়ে গুলি চালাতে শুরু করে।
একজন পুলিশের কাজ প্রকৃত পক্ষে খুবই কঠিন কারণ তাদের সর্বক্ষণ কাজে ব্যস্ত থাকতে হয়, যদিও পুলিশদের কাজের সময় পরিবর্তিত হয়। তারা আইন এবং নিয়ম রক্ষা করার চেষ্টা করে। তারা শান্তি এবং ঐক্যতা বজায় রাখার চেষ্টা করে। যারা আইন ভঙ্গ করতে চান বা বেআইন ও সংশয় সৃষ্টি করতে চান তাদের জন্য এরা কঠোর মনােভাব পােষণ করে। তারা দারুণ ঠাণ্ডার রাতে বা শীতের সকালেও নিজের কর্তব্য পালন করে যায়। তারা বিভিন্ন রকম কার্য সম্পাদন করেন। তারা দাঙ্গা হাঙ্গামা বন্ধ করায় এবং বিবাদমান দুটি দলের মধ্যে মিল করিয়ে দেয়। তারা পবিত্র এবং ধার্মীক সভাকে সুরক্ষা প্রদান করেন এবং অতি দুর্বল ও গুণ্ডাদের হাত থেকে সেই সভাকে রক্ষা করে। প্রকৃত পক্ষে তারা বেআইনি ললাকেদের শত্রু। তারা দুর্বল এবং গরীবদের সুরক্ষিত রাখে।
তারা খুবই কম বেতন পায়, তাদের জীবন যাত্রাও অনুন্নত। এই সামান্য বেতনের ভিত্তিতেই তারা তাদের পরিবারকে প্রতিপালন করে। তাদের কঠোর পরিশ্রমের তুলনায় এই প্রাপ্য সামান্য বেতন কিছুই না। তারা প্রকৃতই সম্মানের অধিকারী কারণ তারা জাতির সম্মান ও জীবনের প্রকৃত অভিভাবক।

Post a Comment

0Comments
Post a Comment (0)

#buttons=(Accept !) #days=(20)

Our website uses cookies to enhance your experience. Learn More
Accept !