Bengali Essay on "My Favourite Place", "আমার দেখা সুন্দরতম স্থান বাংলা রচনা", "Amar Priyo Sohor" for Class 5, 6, 7, 8, 9 & 10

Admin
0
Essay on My Favourite Place in Bengali Language: In this article, we are providing আমার দেখা সুন্দরতম স্থান বাংলা রচনা for students. Bengali Essay on Amar Priyo Sohor.

Bengali Essay on "My Favourite Place", "আমার দেখা সুন্দরতম স্থান বাংলা রচনা", "Amar Priyo Sohor" for Class 5, 6, 7, 8, 9 & 10

আমার দেখা সর্বাধিক সুন্দরতম স্থানটি হল কাশ্মীর। আমি এই বছরেই কাশ্মীর উপত্যকায় ঘুরতে গেছিলাম। যে মুহূর্তে আমি কাশ্মীর উপত্যকা প্রবেশ করেছিলাম, সেই মুহুর্তে ভূস্বর্গের সৌন্দর্য দেখে আমি মুগ্ধ হয়ে গেছিলাম। অনেকে একে ভারতের সুইজারল্যাণ্ড বলেও অভিহিত করে থাকেন। যাইহােক কাশ্মীর বিশ্বের সর্বাধিক আকর্ষণীয় উপত্যকা।
কাশ্মীর অতি বৃহৎ হিমালয়ের ঠিক মধ্যেখানে অবস্থিত। কাশ্মীরে বিভিন্ন ধরনের ফুল, ফল, উদ্ভিদ ও প্রাণীর সমাবেশ ঘটেছে দেখে মনে হয় ভগবান সযত্নে এগুলি সৃষ্টি করেছেন। একই সাথে এখানে প্রচুর ঐতিহাসিক সৌধ, চিত্রবস্থান, আকর্ষণীয় উপত্যকা এবং সবুজের সমাবেশ ঘটেছে। এই রূপ দেখে মনে হয় ভগবানের সবচেয়ে ভালাে অনুভূতি এই কাশ্মীরের উপরেই ঝরে পড়েছিল, কাশ্মীরে প্রচুর মন্দির এবং রেস্তরাঁও আছে। এই স্থানটিকে বহু ভগবানের আবাস বলে মনে করা হয় এবং এখানে বহু সাধু সন্তরাও থাকেন। এছাড়াও এখানে বহু নদী, ঝিল, ঝর্ণা, বরফাবৃত পাহাড়, দীর্ঘাকৃতির সাইপ্রাস বৃক্ষ মিলে এক আকর্ষণীয় রূপ গড়ে তুলেছে, দেখে এটিকে "A mace of beautiful" বলেই মনে হয়।
ঐতিহাসিক স্থান হিসাবে কিছু কিছু পাহাড়ের যথেষ্ট গুরুত্ব এবং বৈশিষ্ট আছে। বিশাত্বগ, চন্দনওবারি, ভৈরী নাগ, অনাগ, চামশাশাহী, নাগিন লেক এবং শালিমার গার্ডেন বহু পর্যটককে আকর্ষণ করে। হাউসবােট সহ ডাল লেকের দৃশ্য এবং স্থির জলে তাদের প্রতিচ্ছবি, একটা মনােরম এবং অতিব সুন্দর দৃশ্য। একটা বৃহৎ জলপ্রপাত থেকে জল পড়ার যে আওয়াজ আসছিল, সেই সুর আজও আমার মনে গেঁথে আছে। অমরনাথ গুহাকে ভগবান শিবের আবাস বলে মনে করা হয়, এটি সত্যিই একটা দর্শনীয় স্থান। সেখানে প্রায় ১৫,০০০ ফুট দীর্ঘ একটা শিবলিঙ্গ দেখেছিলাম। এটি হিন্দুদের কাছে এক অন্যতম ধর্মীয় স্থান, শুধু তাই নয় এর অনেক ঐতিহাসিক গুরুত্বও আছে। প্রতিবছর ভারতের এই প্রাচীনতম ধর্মীয় স্থান দর্শন করতে হাজার হাজার মানুষের ভীড় হয়।
কাশ্মীরের প্রাকৃতিক সৌন্দর্য অতুলনীয়। চিত্তাকর্ষক দৃশ্য, অসাধারণ রূপ, সবুজ ক্ষেত্র, দীর্ঘাকৃতির দেবদারু এবং সাইপ্রাস বৃক্ষ এর সৌন্দর্যকে আরও বাড়িয়ে তুলেছে এবং এটিকে ভগবান সৃষ্ট ভূস্বর্গের আখ্যায় আখ্যায়িত করেছে। সমগ্র উপত্যকাটি যেন সৌন্দর্যের গরিমায় গৌরবান্বিত এবং এই কারণেই বহু বিদেশী পর্যটক এই স্থানের আকর্ষণে ছুটে আসে।
এছাড়াও, কাশ্মীর উপত্যকায় বেশ কিছু পাহাড়ী অঞ্চল আছে, পেহেলগাঁও, গুলমার্গ, শােনমার্গ এবং খিলনমার্গ প্রভৃতি এখানকার বিখ্যাত পাহাড়ী অঞ্চল। এই পাহাড়ী অঞ্চলগুলি প্রকৃতই সুন্দর এবং স্বাস্থ্যকর স্থান। খিলমার্গই কাশ্মীরের শেষ অঞ্চল, গাছের সারি এখানকার সীমা নির্দিষ্ট করে দিয়েছে।
সংস্কৃতি, সংকীর্ণ নদীর ধারা এবং গিরিসংকট সব মিলিয়ে এই উপত্যকাটিকে স্বর্গীয় মহিমা দান করেছে। প্রকৃতপক্ষে অসম্পূর্ণ কাশ্মীর উপত্যকাকে সৌন্দর্যের পীঠস্থান এবং প্রকৃতির দান বলা যায়।

Post a Comment

0Comments
Post a Comment (0)

#buttons=(Accept !) #days=(20)

Our website uses cookies to enhance your experience. Learn More
Accept !