Bengali Essay on "Advantages and Disadvantages of Science", "বিজ্ঞানের অবদান বাংলা রচনা" for Class 5, 6, 7, 8, 9 & 10

Admin
0
Essay on Advantages and Disadvantages of Science in Bengali Language: In this article, we are providing বিজ্ঞানের অবদান বাংলা রচনা for students. Bengali Essay on Advantages and Disadvantages of Science.

Bengali Essay on "Advantages and Disadvantages of Science", "বিজ্ঞানের অবদান বাংলা রচনা" for Class 5, 6, 7, 8, 9 & 10

বিজ্ঞান প্রচুর জিনিসের আবিষ্কার করেছে। বিজ্ঞানের সাফল্য এতই বেশী যে সেটা গণনা করা সম্ভব না। বিজ্ঞানের সাম্প্রতিক কিছু সাফল্য সত্যিই বিস্ময়ের সৃষ্টি করে। এই সৃষ্টিগুলিকে অবস্মরণীয় সৃষ্টি বলা যায়।
বিজ্ঞানের সাহায্যে মানুষ প্রচুর সুযােগ এবং আরাম প্রাপ্ত করতে পেরেছে। মানুষ যখন খুবই আনন্দের সাথে ঘরে বসে টিভির পর্দায় চোখ রাখে তখন এয়ার কন্ডিশনারের ঠাণ্ডা হওয়া এই আনন্দের সাথে আরামও দান করে থাকে। টিভির সাহায্যে আমরা অন্যান্য দেশের রূপ এবং দৃশ্য দেখতে পাই। এর সাহায্যে একজন মানুষ ভারতে বসেই ইউএসএ-র সমস্ত ঘটনা দেখতে পারে। এটা সত্যিই বিজ্ঞানের বিস্ময়কর দান। বর্তমান যুগে আমাদের জীবনে ডিজিটাল টিভির প্রবেশ ঘটে গেছে। মানুষের শরীরের অভ্যন্তরীন আঘাত সম্পর্কে মানুষ জানতে পারে এক্সরের সাহায্যে। এক্সরের উদ্ভাবনের ফলে চিকিৎসা জগৎ-এ আরও বেশি উন্নতি সাধিত হয়েছে। এর পরের বিস্ময়ই ছিল প্লাসটিক সার্জারি। প্লাসটিক সার্জারির সাহায্যে যেকোন কুৎসিত মানুষই সুন্দর মানুষে রূপান্তরিত হতে পারে।
রকেট এবং স্যাটালাইটের উদ্ভাবন মানুষকে বিস্ময়ে বিহুল করে দিয়েছে। রেকট এবং স্যাটালাইটগুলিকে অন্যান্য গ্রহ এবং উপগ্রহে প্রেরণ করা হয়। বর্তমান যুগে বিজ্ঞান যে মানুষকে শুধুমাত্র অন্যান্য গ্রহ বা উপগ্রহতে ঘােরার সুযােগ দেয় তাই না বরং উপগ্রহ গুলির সাথে যােগাযােগের ক্ষেত্রে যে অসুবিধা ছিল তারও সমাধান করে দিয়েছে। আজকের দিনে আমরা আমাদের উর্দ্ধে বিস্তারিত স্তরের উপাদানের ঘনত্ব নিয়ে পড়াশােনা করতে পারি। এই শিক্ষা উপগ্রহে যাত্রাকে আরও বেশী সহজতর করে তুলেছে। ইউএসএ মঙ্গলে তাদের অনুসন্ধান শুরু করে দিয়েছে। আমাদের পৃথিবীর উপরে একটা অত্যাধুনিক উপগ্রহের স্টেশন তৈরি করার পরিকল্পনা চলছে।
পেনিসিলিন, স্ট্রেপটো মাইসিন এবং ক্লোরােমাইসিনের মতন বিস্ময়কর ঔষধের উদ্ভাবনের ফলে অনেক রােগের হাত থেকে মুক্তি পাওয়া সম্ভব হয়েছে। এই অত্যাধুনিক উদ্ভাবনের জন্যই অনেক চিকিৎসার অসাধ্য রােগ থেকেও মানুষকে সুস্থ করে তােলা সম্ভব হয়েছে।
বিজ্ঞানের আধুনিক সৃষ্টি মানুষের জীবনকে উন্নততর করার সাথে সাথে যুদ্ধ ক্ষেত্রেও নিজের লীলা দেখাতে সক্ষম হয়েছে। বিজ্ঞান যুদ্ধকে অনেক বেশী ভয়ঙ্কর এবং ধ্বংসাত্মক করে তুলেছে। বিজ্ঞান মানুষের হাতে গ্যাস ওয়ারফার, ব্যাকট্রোলজিক্যাল ওয়ারফার এবং অটোমিক ওয়েপলস প্রদান করেছে। এর সাহায্যে মানুষের জীবন ধ্বংস করে দেওয়া যায়। এ্যাটাম বােম, হাইড্রোজেন বােম, মিশাইলস, নিউট্রন বােম, নার্ভ গ্যাস, এবং বন্দুকের মতন যুদ্ধাস্ত্রগুলির সাহায্যে মানুষের জীবন যে কোন সময় বিপন্ন হয়ে উঠতে পারে।
যাইহােক বিজ্ঞান ধ্বংস এবং সৃষ্টি উভয় পথই রচনা করে যাচ্ছে। বিজ্ঞানের অভিনভতার সাহায্যে অনেক ধরনের রােগ এবং মৃত্যুর হাত থেকে মানুষ রেহাই পেয়েছে। এর সাহায্যে মানুষ দীর্ঘ জীবনের অধিকারী হয়ে উঠতে পেরেছে। বিজ্ঞানের এই উদ্ভাবনকে সঠিক পথে চালনা করতে হবে তা না হলে এটাই মানবজাতির ধ্বংসের কারণ হয়ে উঠবে।

Post a Comment

0Comments
Post a Comment (0)

#buttons=(Accept !) #days=(20)

Our website uses cookies to enhance your experience. Learn More
Accept !